হোম »  লিভিং হেলথি »  বিশ্ব যকৃত দিবসে নিজের লিভার ভালো রাখার অঙ্গীকার নিন সহজ উপায়েই

বিশ্ব যকৃত দিবসে নিজের লিভার ভালো রাখার অঙ্গীকার নিন সহজ উপায়েই

World Liver Day: যদি সঠিকভাবে এই অঙ্গের যত্ন না নেওয়া হয় তবে সহজেই তা ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

বিশ্ব যকৃত দিবসে নিজের লিভার ভালো রাখার অঙ্গীকার নিন সহজ উপায়েই

World Liver Day: যকৃত ভালো রাখতে হলে মদ কমান

হাইলাইট

  1. বিষাক্ত বস্তুর সংস্পর্শে কম থাকুন
  2. লিভারের যত্ন নিতে হলে ধূমপান ছাড়ুন
  3. ১৯ পালিত হয় বিশ্ব যকৃত দিবস

১৯ এপ্রিল সারা পৃথিবীতেই বিশ্ব যকৃত দিবস (World Liver Day) হিসাবে পালন করা হয়। এই দিনে লিভার (Liver) সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি এবং লিভারের স্বাস্থ্যকে বজায় রাখে এমন একটি জীবনধারা অনুসরণ করার জন্য প্রচেষ্টা চালানো হয়। লিভার বা যকৃত আমাদের পাচনতন্ত্রের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। আপনি যা কিছুই খান বা পান করেন সবকিছুই লিভারের মাধ্যমেই সরবরাহ হয়। যদি সঠিকভাবে এই অঙ্গের যত্ন না নেওয়া হয় তবে সহজেই তা ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। লিভারের গুরুত্বপূর্ণ কিছু কাজের মধ্যে রয়েছে রক্ত ​​পরিষ্কার করা, গ্লুকোজ সংরক্ষণ করা (যা প্রয়োজনে শরীরের শক্তি বৃদ্ধি করে) এবং বাইল তৈরি করা- এটি একটি এমন তরল যা খাদ্য থেকে চর্বিজাতীয় পদার্থ ভাঙতে সহায়তা করে। 

উচ্চ রক্তচাপ, হৃদরোগ, ওজন বাড়ার সব সমস্যা নিয়ন্ত্রণে আনতে পারে এই একটিই সবজির রস

বিশ্ব যকৃত দিবস উপলক্ষে আপনার যকৃতের যত্ন নেওয়ার কিছু সহজ টিপস জেনে রাখুন ...


বিশ্ব যকৃত দিবস: আপনার যকৃতের যত্ন নেওয়ার সহজ টিপস;

1. অ্যালকোহল এড়ান: অ্যালকোহল আপনার যকৃতের কতখানি ক্ষতি করতে পারে তা আপনার ধারণাতীত। যদি আপনি নিয়মিত মদ্যপান করেন তবে আপনার ফ্যাটি লিভার রোগ এবং লিভার সিরোসিসের ঝুঁকি রয়েছে। অ্যালকোহল লিভারের কোষগুলির ক্ষতি করে যাতে লিভারে ঘা বা জ্বালা হয় এবং অবশেষে যকৃতের সিরোসিস রোগ হয়। আপনার শরীরের জন্য অ্যালকোহল কতটা পরিমাণ নিরাপদ তা জানুন।

2. স্বাস্থ্যকর জীবনযাপন করুন: সুস্থ খাবার খাওয়া এবং নিয়মিত ব্যায়াম করা সুস্থ যকৃতের দুটি গুরুত্বপূর্ণ দিক। আপনার ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখাও স্বাস্থ্যকর লিভার বজায় রাখার একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক। এটি ফ্যাটি লিভার রোগ প্রতিরোধ করারও একটি কার্যকরি উপায়। 

দাঁত সাদা করতে গিয়ে আসলে নড়বড়ে করে ফেলছেন না তো?

7cmpsn5o

বিশ্ব যকৃত দিবস: অত্যধিক মদ্যপান লিভারের ক্ষতি করতে পারে

ছবি সৌজন্যে: iStock

3. কিছু নির্দিষ্ট ওষুধ এড়িয়ে চলুন: কিছু ওষুধ রয়েছে যা আপনার যকৃতকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে। পেনকিলার আপনার যকৃতের জন্য বিশেষভাবে ক্ষতিকারক এবং শুধুমাত্র চরম পরিস্থিতিতেই পেনকিলারের শরণাপন্ন হন। কিছু ওষুধ আপনার লিভারের ক্ষতি করতে পারে যদি সেগুলি খাওয়ার করার আগে বা পরে আপনি অ্যালকোহল পান করেন। কিছু ওষুধ আবার অন্য ওষুধের সাথে মিশে গেলে যকৃতের ক্ষতি করে। ডাক্তারের নির্ধারিত ওষুধ, তাঁর সঙ্গে পরামর্শ করেই খাবেন।

4. বিষাক্ত বস্তু বা টক্সিন এড়িয়ে চলুন: ক্ষতিকারক বা বিষাক্ত যে কোনও টক্সিনের সংস্পর্শে শ্বাস নেবেন না। Aerosols বা কীটনাশকের মতো কিছু রাসায়নিক পণ্য রয়েছে যা আপনার লিভারের ক্ষতি করতে পারে। এছাড়াও, লিভারের ক্ষতি প্রতিরোধ করতে ধূমপান এড়ান।

5. কফি খান: কফি লিভারের রোগের ঝুঁকি কমিয়ে দিতে পারে। এর পিছনের কারণ এখনও যদিও অস্পষ্টই। সুস্থ লিভারের জন্য কফি খান, তবে ক্যাফিনের কু প্রভাবগুলি প্রতিরোধ করতে অতিরিক্ত কফি একেবারেই না।

মন্তব্য

স্বাস্থ্যের খবর সাথে সুস্থ থাকার জন্য অভিজ্ঞদের টিপস, ডায়েট পরিকল্পনা জানতে, লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

................... বিজ্ঞাপন ...................

................... বিজ্ঞাপন ...................

................... বিজ্ঞাপন ...................

-------------------------------- বিজ্ঞাপন -----------------------------------