হোম »  লিভিং হেলথি »  সারা আলি খানের মতো আপনিও পিসিওএস থেকে রেহাই পেতে পারেন কয়েকটা সহজ টিপস মেনেই

সারা আলি খানের মতো আপনিও পিসিওএস থেকে রেহাই পেতে পারেন কয়েকটা সহজ টিপস মেনেই

সইফ আলি খানের কন্যা সাড়া আলি খান পিসিওএসের সমস্যায় ভুগেছেন। তিনি জানালেন কীভাবে তিনি এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেয়েছেন। জেনে নিন আপনিও।

সারা আলি খানের মতো আপনিও পিসিওএস থেকে রেহাই পেতে পারেন কয়েকটা সহজ টিপস মেনেই

সারা আলি খান জানান পিসিওএসে আক্রান্ত হয়ে তিনি অনেকটা ওজন বাড়িয়ে ফেলেছিলেন।

সদ্যই একটি চ্যাট শোতে সইফ আলি খানের মেয়ে সারা আলি খান স্বীকার করেন যে উনি একসময় পলিসিস্টিক ওভারি সিনড্রোমে (পিসিওএস) ভুগেছেন। অভিনেত্রী খুব তাড়াতাড়ি ছবিতে অভিনয়ের মাধ্যমে রুপোলি জগতে পা রাখতে চলেছেন। পিসিওএসে ভোগা বেশির ভাগ মহিলার মধ্যেই ওজনবৃদ্ধি লক্ষ্য করা যায়, এবং সারা আলি খানও তার ব্যতিক্রম নয়। এটি মহিলাদের হরমোনের মাত্রার ব্যাঘাত ঘটায়। ফলে পিরিয়ড সাময়িক বন্ধ হওয়া বা কোনও ক্ষেত্রে একেবারেই না হওয়ার মতো ঘটনাও ঘটতে দেখা যায়। এটি ভবিষ্যতে সন্তানধারণেও ব্যাঘাত সৃষ্টি করে।

পাকিস্তানের ১৪ মাসের শিশুর হৃদয় ঠিক করে দিল ভারতের হাসপাতাল

3mk3v548

পিসিওএসে আক্রান্ত মহিলারা বেশিরভাগ সময়ই ওজন বৃদ্ধির মতো সমস্যায় ভোগেন।

রোগের উপসর্গ হিসাবে মুখ ও শরীরে অবাঞ্চিত লোম দেখা যায়, আবার ছেলেদের মতো মাথায় টাক পড়তেও দেখা যায়। এছাড়াও ঠিক মতো চিকিৎসা না করলে ভবিষ্যতে ব্লাড সুগার ও হৃদরোগেরও সম্ভাবনা থাকে। কমন কিছু উপসর্গ হলো, অতিরিক্ত ওজন বৃদ্ধি ও ওজন না কমা, পেলভিক পেইন, ডায়াবেটিস, অনিয়মিত মাসিক, একনে বা তৈলাক্ত ত্বক, ওভারিয়ান সিস্ট, খুশকি ও বন্ধ্যাত্ব।

তৃতীয় পর্যায়ের পেরিটোনিয়াল ক্যানসারে আক্রান্ত নাফিসা আলি। জেনে নিনে এই রোগের কিছু দিক

পিসিওএস থাকলে ওজন কমাবেন কীভাবে দেখে নিন:

1. জাঙ্ক ফুড বর্জন করুন:

জাঙ্ক ফুডে থাকা ক্ষতিকর উপাদান শরীরে ওজন বৃদ্ধি, ব্লাড সুগার ও ব্লাড প্রেসার বাড়িয়ে তোলে। পিজ্জা, বার্গার, চিপস, অন্য ফ্রোজেন খাবার ইত্যাদি বর্জন করুন। বদলে তাজা ও বাড়িতে রান্না করা খাবার খান।

33s36s38

বাইরের তেল মশলাযুক্ত খাবার ত্যাগ করুন।

2. ফাইবার সমৃদ্ধ খাবার খান:

ফাইবার সমৃদ্ধ খাবার ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকে। ক্ষিদের ভাব কমিয়ে বেশি খাবার খাওয়া থেকে রক্ষা করে। বেশি পরিমাণ তাজা ফল, সবুজ শাকসব্জি খান।

শিশুপুত্রের জন্মদাত্রী মায়েরা ডিপ্রেশনে ভুগছেন বেশি- বলছে গবেষণা

3. শরীরচর্চা করুন:

নিয়মিত শরীরচর্চা করলে শরীর সুস্থ সবল থাকবে, রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে, পেশির শক্তিবৃদ্ধি পাবে, ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকবে এবং রোগবালাই দূরে থাকবে। প্রতিদিন নিয়ম করে হাঁটা, দৌড়ানো, সাইকেল চালানো, সাঁতারকাটা, যোগব্যায়াম ইত্যাদি করুন।
 

v3vg2h2

নিয়মিত শরীরচর্চা করুন।

4. খাদ্যতালিকা থেকে ক্যালোরি কম করুন:

মিষ্টি খাওয়া থেকে বিরত থাকুন। ক্যান্ডি, বেকড খাবার, কেক, চকোলেট, মিষ্টি পানীয় ইত্যাদি থেকে দূরে থাকুন।

5. স্ট্রেস নিয়ন্ত্রণে রাখুন:

পিসিওএসে স্ট্রেস নিয়ন্ত্রণ করা একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। কাজসম্পর্কীয় বা ব্যক্তিগত, যে কোনও রকমের স্ট্রেসই ক্ষতিকর। যোগব্যায়াম, ধ্যান, ব্রিদিং এক্সারসাইজ করে স্ট্রেস নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন।

গর্ভাবস্থায় অতিরিক্ত চাপ শিশুর প্রাপ্তবয়সে তৈরি করতে পারে জটিল সমস্যা

6. জল পান করুন:

বেশি পরিমাণ জলপান করলে তা অতিরিক্ত মেদ ঝরতে সাহায্য করে। হালকা ডিহাইড্রেশন হলেও ক্লান্তি, ঝিমুনি ইত্যাদি হতে পারে যা পিসিওএসের প্রাথমিক উপসর্গ। সারাদিন ধরেই জল বা অন্যান্য উপকারী পানীয় পান করতে থাকুন।

m0r5s4q8

পর্যাপ্ত পরিমানে জলপান করুন।

সতর্কবার্তা: উপরিউক্ত টিপস প্রয়োগ করার আগে ডাক্তারের পরামর্শ নিন। কোনও তথ্যের জন্যই এনডিটিভি দায়ী নয়।

স্বাস্থ্য সংক্রান্ত আরও খবর পড়ুন এখানে

মন্তব্য

স্বাস্থ্যের খবর সাথে সুস্থ থাকার জন্য অভিজ্ঞদের টিপস, ডায়েট পরিকল্পনা জানতে, লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

................... বিজ্ঞাপন ...................

................... বিজ্ঞাপন ...................

 

................... বিজ্ঞাপন ...................

-------------------------------- বিজ্ঞাপন -----------------------------------