হোম »  ব্রেস্ট ফিডিং »  World Breastfeeding Week 2019: স্তন্যপান নিয়ে কী বার্তা দিলেন নেহা ধুপিয়া?

World Breastfeeding Week 2019: স্তন্যপান নিয়ে কী বার্তা দিলেন নেহা ধুপিয়া?

অগস্ট মাসের প্রথম সপ্তাহ অর্থাৎ ১ তারিখ থেকে ৭ তারিখ পর্যন্ত বিশ্ব জুড়ে উৎযাপিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক স্তন্যপান দিবস।

World Breastfeeding Week 2019: স্তন্যপান নিয়ে কী বার্তা দিলেন নেহা ধুপিয়া?

World Breastfeeding Week: স্তন্যপানের অভিজ্ঞতা জানিয়েছেন নেহা ধুপিয়া

হাইলাইট

  1. বাচ্চাকে সুস্থ ও স্বাস্থ্যবান করতে মায়ের দুধ অপরিহার্য
  2. প্রতিদিন শিশুকে একটা নির্দিষ্ট বয়স পর্যন্ত স্তন্যপান করানো উচিত
  3. এমনই অনুরোধ অভিনেত্রী নেহা ধুপিয়ার

অগস্ট মাসের প্রথম সপ্তাহ অর্থাৎ ১ তারিখ থেকে ৭ তারিখ পর্যন্ত (August 1 to 7) বিশ্ব জুড়ে উৎযাপিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক স্তন্যপান দিবস (World breastfeeding week)। শুধু জন্ম দিয়ে নয়, নির্দিষ্ট বয়স পর্যন্ত মাতৃ স্তন্যপান করিয়ে সন্তানকে চিরঋণী করে যান মা। কারণ, মাতৃদুগ্ধ একজন শিশুর কাছে অমৃত সমান। যা তাকে আজীবন সুস্থ থাকতে সাহায্য করে। লড়তে সাহায্য করে রোগ-জীবাণুর বিরুদ্ধে। আর সদ্যজাতের কাছে এই খাবারের মতো সেরা খাবার আর কিছুই হয় না।এই বিশেষ সপ্তাহ উৎযাপনের পাশাপাশি তাই সমস্ত মায়েদের তাঁদের সন্তানের সুস্থতার স্তন্য স্তন্যপানের আহ্বান জানালেন বলিউড অভিনেতা নেহা ধুপিয়া (Bollywood actress Neha Dhupia)। একই সঙ্গে ভাগ করে নিলেন তাঁর মেয়ে মেহেরকে (Mehr) স্তন্যদানের অভিজ্ঞতা।   

ভিডিও-তে নেহা বলেছেন, প্রত্যেক মা-ই চান তাঁর সন্তান সুস্থ-সবল হোক। তার জন্য স্তন্যপান করানো জরুরি।আমিও মেহরকে জন্মের পর থেকে টানা ছ-মাস স্তন্যপান করিয়েছি। এবং বুঝেছি, এর মাধ্যমে কীভাবে মায়ের সঙ্গে সন্তানের সম্পর্ক আরও অটুট হয়। সন্তানের প্রতি যেন আরও দায়িত্ব বেড়ে যায় মায়েদের। একবার বিমান সফরের সময় আমাকে বাথরুমে গিয়ে মেয়েকে স্তন্যপান করাতে হয়েছিল। বেশ কিছুক্ষণ বাথরুম কাটানোর জন্য সবার কাছে ক্ষমাও চেয়ে নিয়েছিলাম। তবে সবাই সেদিন আমাকেই সাপোর্ট করেছিলেন। 

Turmeric And Black Pepper: একসঙ্গে থাকলে কী কী ম্যাজিক দেখায় হলুদ-গোলমরিচ?জানেন?


"তবে আমার প্রশ্ন, সন্তানকে স্তন্যদান পৃথিবীর সেরা কাজের মধ্যে অন্যতম। সেই কাজ কেন সবার সামনে আজও করা যায় না? আমাদের মনোভাব সামান্য বদলে নিলেই কিন্তু এই সমস্যা কেটে যাবে। সমাজকে সচেতন করতে এই নিয়ে সবার আলোচনায় অংশ নেওয়া জরুরি।" 

একটি ভিডিও-ও শেয়ার করেছেন নেহা.....

স্তন্যপান নিয়ে মিথ

এত কিছু জানার পরেও স্তন্যপান নিয়ে এখনও অনেক মিথ রয়েছে মায়েদের মনে। সমাজের মনে। আজ সেই মিথ ভাঙার পালা:

১. অনেকবার স্তন্যপান করালে সন্তান পর্যাপ্ত মাতৃদুগ্ধ পাবে না

বারেবারে স্তন্যপান করালে নাকি মায়ের দুধের ভাঁড়ারে টান ধরে। প্রযোজনের সময় বা খিদে পেলে সন্তান তখন আর পর্যাপ্ত খাবার পায় না। খুব ভুল ধারণা এটি। মাতৃদুগ্ধ সহজপাচ্য হওয়ায় দু-তিন ঘণ্টা অন্তর সন্তানকে স্তন্যপান করাতে পারেন। 

২. সন্তানকে দীর্ঘদিন স্তন্যপান করালে স্তনের আকার নষ্ট হয়ে যায়

এটি একদম ভুল কথা। সন্তানকে স্ত্য দিলে স্তনের আকার নষ্ট হয় না। বরং, মা দূরে থাকেন ব্রেস্ট ক্যান্সার থেকে।

৩. ঘুম থেকে তুলে সন্তানকে স্তন্য দেওয়া ঠিক নয়

বাচ্চা ঘুমোলে তার খিদে-তৃষ্ণা বোধ থাকে না। তাই বাচ্চাকে প্রয়োজনে ঘুম থেকে তুলে দুধ খাওয়ান। এতে ওর কোনও ক্ষতি হবে না।  

Menstrual Period Pain: ঋতুকালীন ব্যথা-অবসাদ গায়েব রুজুতা দিয়েকরের এই যোগ-এ

৪. অসুস্থ মায়ের স্তন্যদান না করাই ভালো

এর মতো সুষম আহার শিশুর কাছে আর কিছুই নেই। আর দুধের মাধ্যমে মায়ের শারীরিক অসুস্থতা কখনোই শিশুর শরীরে প্রবেশ করে না। তাই নির্ভয়ে, নিশ্চিন্তে সন্তানকে স্তন্যদান করান। 

সতর্কীকরণ: এই নিবন্ধের জন্য কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়। তথ্য অনুসরণের আগে তাই বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেওয়া জরুরি।

মন্তব্য

স্বাস্থ্যের খবর সাথে সুস্থ থাকার জন্য অভিজ্ঞদের টিপস, ডায়েট পরিকল্পনা জানতে, লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

................... বিজ্ঞাপন ...................

................... বিজ্ঞাপন ...................

 

................... বিজ্ঞাপন ...................

-------------------------------- বিজ্ঞাপন -----------------------------------