হোম »  সংবাদ »  ব্লাড প্রেশার কমান- ডিমেনশিয়া থেকে দূরে থাকুন
পড়ুন | READ IN

ব্লাড প্রেশার কমান- ডিমেনশিয়া থেকে দূরে থাকুন

এই ওষুধের সবচেয়ে ভালো দিকটি হল, এগুলি সস্তা আর সহজ জেনেরিক ফর্মুলেশনে বাজারেও সহজলভ্য

ব্লাড প্রেশার কমান- ডিমেনশিয়া থেকে দূরে থাকুন

কম রক্তচাপ ডিমেনশিয়ার ঝুঁকিও কমায়

হাইলাইট

  1. রক্তচাপ কমালে অনেক রোগের হাত থেকেই মেলে রেহাই
  2. ব্লাড প্রেশার কমালে ডিমেনশিয়ার ঝুঁকিও কমে
  3. ভালো হার্ট মানে ভালো মস্তিষ্ক

স্মৃতিভ্রংশ বা ডিমেনশিয়ার ঝুঁকি কমানোর ওষুধ আবিষ্কার করেছেন চিকিৎসকেরা। এই ধরণের আবিষ্কার ইতিহাসে প্রথম। এই ওষুধের সবচেয়ে ভালো দিকটি হল, এগুলি সস্তা আর সহজ জেনেরিক ফর্মুলেশনে বাজারেও সহজলভ্য। দশকের পর দশক এই ওষুধ রক্তচাপ কমানোর জন্য এবং হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমাতে ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে।

বয়স বাড়ার সাথে সাথে ডিমেনশিয়ার ঘটনা পাল্লা দিয়ে বৃদ্ধি পেয়েছে। 55 বছর বয়সের বেশি বয়সের মহিলাদের প্রতি ছ’জনের মধ্যে একজনের আর পুরুষদের ক্ষেত্রে 10 শতাংশ মানুষেরই মৃত্যুর আগে ডিমেনশিয়া হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আমেরিকা শহরে  5 মিলিয়নেরও বেশি মানুষ অ্যালজাইমারে আক্রান্ত। শুধু তাই না, দেশের মানুষের বিভিন্ন কারণের মধ্যে ছ’ নম্বরেই রয়েছে অ্যালজাইমারে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু। স্মৃতিভ্রংশ হ্রাস করার জন্য কোটি কোটি ডলার খরচ করে ওষুধ বানানোর চেষ্টা চলেই আসছে। কিন্তু দুঃখের বিষয় এখনও অব্দি কোনটাই তেমন সফল হয়নি।

সিস্টোলিক ব্লাড প্রেসার ইন্টারভেনশন ট্রায়াল, বা স্প্রিন্ট, 2010 সালে শুরু হয়। এই ট্রায়ালের মূল প্রতিপাদ্য ছিল, রক্তচাপ যদি দ্রুতহারে কমানো হয় তাহলে শারীরিক অনেক সমস্যা থেকেই মুক্তি পাওয়া যায়। তাঁর মধ্যেই রয়েছে হৃদরোগ এবং ডিমেনশিয়া সহ বিভিন্ন স্বাস্থ্যগত সমস্যাগুলি কম করার সম্ভাবনাও। গবেষকরা জুন মাসে স্প্রিন্ট মাইন্ড নামে একটি পৃথক বিশ্লেষণে দেখান, যে 9,361 জন অংশগ্রহণকারীর মধ্যে রক্তচাপ কমানোর পরীক্ষাটি চালানো হয় তাঁদের স্মৃতিশক্তিজনিত রোগ অনেকখানিই নিয়ন্ত্রণে আনা যায়।


শিকাগোয় আলজাইমার্স অ্যাসোসিয়েশনের ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্সে প্রকাশিত ফলাফলে দেখানো হয় যে, যাঁদের প্রাথমিকভাবে তীব্র রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছিল, তাদের বার্ধক্যজনিত স্মৃতিশক্তি হ্রাসের হার 19 শতাংশ কম ছিল।

"আপনার হৃদয়ের জন্য যা কিছু ভালো, মনে রাখবেন তা কিন্তু আপনার মস্তিষ্কের জন্যও ভাল।“-ওয়েক ফরেস্ট স্কুল অফ মেডিসিনের জেরোন্টোলজি এবং জেরিয়াট্রিক মেডিসিনের প্রধান গবেষক জেফ উইলিয়ামসন বলেন।

গবেষকরা জানান, যারা ইন্টেনসিভ চিকিৎসার মধ্যে রয়েছে তাঁদের রক্তচাপ 120 মিমিএইচজি নীচে করা খুবই দরকার। যারা স্বাভাবিক চিকিৎসায় আছেন তাঁদের ক্ষেত্রে  140 মিমিএইচজি-র ব্লাড প্রেশার আদর্শ।

উইলিয়ামসন বলেন এই বিষয়টিকে গাড়ির চাকার সাথে তুলনা করে জানান, "আপনার সঠিক চাপটা দরকার। খুব বেশি বা খুব কম হলেই কিন্তু টায়ার ছিঁড়ে যায়, আপনারা সবাইই জানেন। রক্তচাপও যদি এটি খুব বেশি হয় তবে ধমনীর দেয়াল ভেঙ্গে যায়।"

আলজাইমার্স অ্যাসোসিয়েশনের গ্লোবাল সায়েন্সের উদ্যোগের পরিচালক জেমস হেন্ডরিক্স জানান, আমরা যা ফলাফল পেয়েছি গবেষণায় সেই অনুযায়ী এগোলে স্মৃতি হারানোর ঝুঁকি অনেকটাই কমিয়ে দেওয়া যাবে। তবে মানুষ তাঁর জীবনে কী পদক্ষেপ নিতে চাইছে এই রোগের সমাধানের জন্য সেটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। অনেক মানুষেরই রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণের এই প্রয়োজনটা নেই। ভালো হার্ট মানেই ভালো মস্তিষ্ক, সেটা যাঁদের সমস্যায় নেই তাঁদের রক্তচাপ কমানোর দিকে এত হুড়োহুড়ি প্রয়োজন নেই।

"সমস্ত কিছু ঠিকঠাক করলেও কিন্তু মানুষের ডিমেনশিয়া হতেই পারে। কিন্তু সমস্ত ঠিক রাখলে অন্তত পাঁচ দশ বছর আপনার মস্তিষ্ক দুর্দান্ত অ্যক্টিভ থাকবে, সেটাও প্রয়োজন।“-বলেন জেমস।



(এনডিটিভি এই খবর সম্পাদিত করেনি, এটি সিন্ডিকেট ফিড থেকে সরাসরি প্রকাশ করা হয়েছে.)
মন্তব্য

স্বাস্থ্যের খবর সাথে সুস্থ থাকার জন্য অভিজ্ঞদের টিপস, ডায়েট পরিকল্পনা জানতে, লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

................... বিজ্ঞাপন ...................

................... বিজ্ঞাপন ...................

 

................... বিজ্ঞাপন ...................

................... বিজ্ঞাপন ...................

-------------------------------- বিজ্ঞাপন -----------------------------------