হোম »  Men's Health »  Father's Day 2019; স্বাস্থ্য নয়, জানেন কি কোন সমস্যা জেরবার করে অধিকাংশ বাবাদের?

Father's Day 2019; স্বাস্থ্য নয়, জানেন কি কোন সমস্যা জেরবার করে অধিকাংশ বাবাদের?

Father's Day 2019: মা হওয়া যেমন মুখের কথা নয় তেমনি বাবা হওয়া যেমন গর্বের তেমনি চাপের। সন্তানরা নিজের পায়ে দাঁড়ানোর পরেও যেন বাবার দায়িত্ব কমে না।

Father

Father's Day 2019: যত্নে থাকুক বাবারাও

মা হওয়া যেমন মুখের কথা নয় তেমনি বাবা হওয়া যেমন গর্বের তেমনি চাপের। সন্তানরা নিজের পায়ে দাঁড়ানোর পরেও যেন বাবার (Indian Fathers) দায়িত্ব কমে না। আর ছেলেমেয়ে যখন ছোট থাকে তখন তো কথাই নেই। ‘আমার সন্তান যেন থাকে দুধেভাতে', কায়মনোবাক্যে এই কামনা করতে করতেই কখন যে দিন, মাস কেটে বছর গড়িয়ে যায়---খেয়ালই থাকে না তাঁদের। যখন হুঁশ ফেরে তখন বেলা গড়িয়ে প্রায় শেষের দিকে। ঠিক এই কারণেই নিজেদের স্বাস্থ্যের দিকেও (Own Health) খেয়াল রাখার সময় পান না তাঁরা। সম্প্রতি, বাবাদের নিয়ে একটি সমীক্ষা করেছিল একটি স্বাস্থ্য বিমা সংস্থা। সেই সমীক্ষায় উঠে এসেছে, পড়ন্ত বেলায় অনেক বাবারই নিজের স্বাস্থ্যের যত্নের কথা হয়ত ভাবেন। কিন্তু, সে সংখ্যা হাতে গোণা। 

চুলের ডগা ফেটে ঝরে যাচ্ছে? মেনে চলুন রুজুতা দিওয়েকারের সহজ টিপস

সমীক্ষা বলছে, ৮১ শতাংশ বাবা নিজের স্বাস্থ্যের থেকেও নিজের উপার্জন বাড়ানোর দিকে নজর দেন বেশি। আর তাঁদের মাত্র ২০ শতাংশ খাতায়কলমে যত্ন নেন নিজের শরীরের। শতকরা ৯৩ জন শুধু সন্তানের মুখ চেয়ে সপ্তাহের সাতদিনই কাজ করেন। একবারও ভাবেন না, তাঁদেরও ছুটির প্রয়োজন আছে। তাঁরাও রক্তমাংসের মানুষ। তাঁদের খাওয়া-ঘুম-রিল্যাক্স লাগে। ফলে, কাজ আর পরিবারের মধ্যে সামঞ্জস্য রাখতে না পেরে অনেক বাবাই অকালে বুড়িয়ে যান।


প্রায় ৮৫ শতাংশ বোঝেন, মারাত্মক কাজের চাপে (Work Stress) তাঁদের খাওয়া, ঘুম, সামাজিক জীবন, শরীরচর্চার ইচ্ছে চাপা পড়ে যাচ্ছে। বুঝেও তাঁরা না বোঝার ভান করে সারাক্ষণ মাথায় কাজের বোঝা চাপিয়ে ঘোরেন। কেন? বাহ্ রে, সন্তান মানুষ করতে হবে যে! কাজের বোঝা টানতে টানতে ৪৬ শতাংশ তো অবসর পেলে শরীরচর্চার বাইরে বাকি সব কিছুই করেন। ফাদার্স ডে-র আগে এই সমীক্ষা করতে গিয়ে সাতটি শহরের ১৩১৯ বাবার সঙ্গে কথা বলেছিল সংস্থা। তাঁদের মধ্যে বেশির ভাগের বয়েস ৩৫। সবাই স্নাতক। এবং রোজগার পাঁচ লাখ টাকার আশপাশে। এই বাবাদের মধ্যে ১৯ শতাংশ নিজের শরীরের ঠিকঠাক যত্ন নেন। বাকি ৪৯ শতাংশ? আপাতমস্তক ওয়ার্কোহলিক। 

পুরুষের থেকে থাইরয়েডে বেশি ভোগেন মেয়েরা!

সমীক্ষা আরও জানিয়েছে, ৬৮ শতাংশ বাবা সপ্তাহে ৬ দিন কাজ করেন। ৭-৯ ঘণ্টা কাজ করেন ৫৫ শতাংশ। দিনের শেষে হা-ক্লান্ত হয়ে বাড়ি ফেরেন (Ignore Their Own Health)। আর রোজ একটু একটু করে ডুবে যান অবসাদে। ভালো থাকা, ভালো খাওয়া দূরের কথা, নিজেদের হেল্থ ইনসিওরেন্সের কথাও মাথায় আসে না এঁদের। এই প্রবণতা বেশি দেখা গেছে দিল্লি, কলকাতা আর লখনৌ শহরে। অথচ, একটু আউটিং, একটু আড্ডা, বছরে দু'বার পরিবারকে নিয়ে বেড়াতে যাওয়া এঁদের ভীষণ দরকার। এঁরাও সেটা বোঝেন। কিন্তু মেনটেন করতে পারেন না। তাই এই সব বাবাদের পরিবারের প্রতি অনুরোধ, বছরে একটা দিন ঘটা করে ‘বাবা দিবস' পালন না করে সংসার-সন্তান অন্তপ্রাণ এই মানুষগুলোর যত্ন নিন। না হলে, কখন যে মাথার ওপর থেকে ছাতা সরে যাবে, বুঝতেও পারবেন না।

মন্তব্য

স্বাস্থ্যের খবর সাথে সুস্থ থাকার জন্য অভিজ্ঞদের টিপস, ডায়েট পরিকল্পনা জানতে, লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

................... বিজ্ঞাপন ...................

................... বিজ্ঞাপন ...................

................... বিজ্ঞাপন ...................

-------------------------------- বিজ্ঞাপন -----------------------------------