হোম »  লিভিং হেলথি »  জানেন, যষ্ঠীমধুর চা বাড়িয়ে দিতে পারে আপনার ব্লাডপ্রেসার!

জানেন, যষ্ঠীমধুর চা বাড়িয়ে দিতে পারে আপনার ব্লাডপ্রেসার!

অতিরিক্ত রক্তচাপ ছাড়াও মন্ট্রিলের ওই বৃদ্ধ আরও নানা সমস্যায় ভুগছিলেন। অতিরিক্ত যষ্ঠীমধুর চা-পানের ফলে, বুকে-মাথায় ব্যথা, অবসাদ,শরীরে জল জমে যাওয়ার মতো সমস্যা দেখা দিয়েছিল তাঁর শরীরে।

জানেন, যষ্ঠীমধুর চা বাড়িয়ে দিতে পারে আপনার ব্লাডপ্রেসার!

উচ্চ রক্তচাপের রোগীদের জন্য যষ্ঠীমধু ক্ষতিকর

হাইলাইট

  1. সর্দি-কাশি সারাতে যষ্ঠীমধু ভীষণ উপকারি
  2. তবে যষ্ঠীমধু মেশানো চা বেশি খেলে কিন্তু প্রেসার বাড়ে
  3. হাইপার টেনশনের রোগীদের অবসাদ, মাথাব্যথা বাড়িয়ে দেয় এটি

সর্দি-কাশি হলে অনেকেই আয়ুর্বেদিক ওষুধ হিসেবে যষ্ঠীমধুর চা খান। কিন্তু জানেন কি, অতিরিক্ত যষ্ঠীমধুর চা (mulethi tea) পান করা মারাত্মক ভাবে বাড়িয়ে দিতে পারে আপনার রক্তচাপ (high blood pressure)? সম্প্রতি, মন্ট্রিলে (Montreal) ঘটেছে এই অঘটন।  অতিরিক্ত এই চা-পানের ফলে নার্সিংহোমের ইমার্জেন্সি ইউনিটে ভর্তি হতে হয়েছে ৮৪ বছরের এক বৃদ্ধকে। আদতে যষ্ঠীমধু এক ধরনের বনৌষধি বা ভেষজ উদ্ভিদ। এটি পাওয়া যায় রাশিয়া, এশিয়া আর ইরানে। সাধারণত হজমের সমস্যায় যেমন, গলা-বুক জ্বালা, পেটে ঘা বা প্রদাহ হলে অনেকেই এটি  চিবিয়ে খান। এছাড়াও, যষ্ঠীমধু (Mulethi) গলার ঘা (sore throat), খুশখুশে কাশি (cough), ব্রঙ্কাইটিস (bronchitis) কমিয়ে দিতে সিদ্ধহস্ত।

অতিরিক্ত রক্তচাপ ছাড়াও মন্ট্রিলের ওই বৃদ্ধ আরও নানা সমস্যায় ভুগছিলেন। অতিরিক্ত যষ্ঠীমধুর চা-পানের ফলে, বুকে-মাথায় ব্যথা, অবসাদ,শরীরে জল জমে যাওয়ার মতো সমস্যা দেখা দিয়েছিল তাঁর শরীরে।

মার্কিনি খাদ্য ও ওষুধ বিশেষজ্ঞদের মতে, কালো যষ্ঠীমধুতে (black licorice) গ্লাইসারহিজিন (glycyrrhizin) এক ধরনের বিশেষ উপাদান আছে। যা শরীরে পটাশিয়ামের (potassium) পরিমাণ কমিয়ে দেয়। পটাশিয়ামের মাত্রা কমে গেলে অনেকসময়েই হৃদস্পন্দন অস্বাভাবিক হারে বেড়ে যায়। একই সঙ্গে বাড়ে ব্লাডপ্রেসার। এছাড়াও, শরীরে ফোলাভাব দেখা দিতে পারে। হৃদরোগের সম্ভাবনা বেড়ে যায়। আলস্য নামে শরীর জুড়ে। তবে যষ্ঠীমধু সবথেকে বেশই ক্ষতি করে কিডনির। এতেই শরীরে জল জমে। ফোলা ভাব দেখা দেয়। তার থেকে বাড়ে প্রেসার (high blood pressure)।


তাই যষ্ঠীমধু দিয়ে বানানো চা খাওয়ার আগে পারলে একবার চিকিতসকের সঙ্গে পরামর্শ করে নিন। নিজেই নিজের ডাক্তারি করবেন না।

রইল উচ্চ রক্তচাপ কমানোর আরও কয়েকটি টিপস:

১. রোজ হাঁটুন আর ব্যায়াম করুন: রক্তচাপ কমানোর সবচেয়ে ভালো উপায় রোজ নিয়ম করে হাঁটুন আর ব্যায়াম করুন। যত বেশি হাঁটবেন, পরিশ্রম করবেন ততই বশে থাকবে প্রেসার। শরীর চালনা মানেই হৃদস্পন্দন বাড়া। আর হৃদগতি ঠিক থাকলেই চাপমুক্ত আপনি।

ramdb1l

সৌজন্যে: আই স্টক

২.নুন কম: প্রসেসড বা প্যাকেজ করা খাবার, বাড়তি নুন, জাঙ্ক ফুড পুরোপুরি এড়িয়ে চলুন। বেশি সোডিয়ামও খাবেন না। এটা ব্লাডপ্রেসার বাড়িয়ে দেয় খুব তাড়াতাড়ি।

৩. মদ্যপানে না: উচ্চ রক্তচাপের রোগীদের পক্ষে মদ্যপান আসলে কিন্তু বিষপান।

৪. পটাশিয়াম যুক্ত খাবার বেশি খান: বেশি করে খান কলা, বাদাম, দানা শস্য, অ্যাভোকাডো, টম্যাটোর মতো খাবার। সোডিয়ামের যম পটাশিয়াম। শরীরে এই উপাদান বেশি মানেই আপনি সুস্থ।

৫. ধুমপান নাস্তি: শুধু ধুমপানই বারণ নয়, ধুমপায়ীদের আশপাশেও থাকবেন না। এতে আপনার রক্তচাপ বাড়বে।

ভালো থাকার শেষ টিপস--- নিয়ম মেনে চলুন। পরিমিত খান। টেনশন নাস্তি। আর রাতে ভালো ঘুমোন। তাহলেই এনার্জিতে ফুটবেন আপনি। বাকি রইল যষ্ঠীমধুর চা। ওটা না হয় বুঝেসুঝে খাবেন!

সতর্কীকরণ: এই নিবন্ধের কোনও দায় এনডিটিভির নয়। উপরে বলা পরমার্শ গ্রহণের আগে চিকিতসেকর সঙ্গে পরামর্শ করে নেওয়াই বাঞ্ছনীয় 

মন্তব্য

স্বাস্থ্যের খবর সাথে সুস্থ থাকার জন্য অভিজ্ঞদের টিপস, ডায়েট পরিকল্পনা জানতে, লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

................... বিজ্ঞাপন ...................

................... বিজ্ঞাপন ...................

................... বিজ্ঞাপন ...................

-------------------------------- বিজ্ঞাপন -----------------------------------