হোম »  ডায়াবেটিস »  ডায়াবেটিক? রান্নার তেল বদলে উপকার পেতে পারেন

ডায়াবেটিক? রান্নার তেল বদলে উপকার পেতে পারেন

সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে, ঠান্ডা তিলের তেল এবং রাইস ব্র্যান তেল রক্তে গ্লুকোজ মাত্রা, রক্তচাপ ও লিপিড প্রোফাইল নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে।

ডায়াবেটিক? রান্নার তেল বদলে উপকার পেতে পারেন

ডায়াবেটিকদের জন্য তিলের তেল আর রাইস ব্র্যান তেল মিশিয়ে খেলে উপকার

হাইলাইট

  1. তিলের তেল আর রাইস ব্র্যান তেল মিলিয়ে খেলে ডায়াবেটিকদের উপকার
  2. শরীরের জন্য দরকারি মোনো আর পলি স্যাচুরেটেড ফাইবারে ঠাসা এই তেল
  3. দু'টি তেলই অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে সমৃদ্ধ

টাইপ ২ ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ এবং হাইপারকোলেস্টেরলেমিয়া - এই তিনটি  জীবনশৈলী সম্পর্কিত সবথেকে গুরুতপূর্ণ রোগ। এই তিনটি রোগ প্রায় একে অন্যের সাথে সম্পর্কযুক্ত। যে কোনও একটি হলেই অন্য রোগটির আশঙ্কা বেড়ে যায়। এই সমস্যার মোকাবিলা করার জন্য স্বাস্থ্যকর খাওয়াদাওয়া এবং শরীরচর্চা অত্যন্ত প্রয়োজন। যদিও বেশিরভাগ রোগীই চর্বিজাতীয় খাবার খাবেন না এই বিষয়ে সচেতন থাকেন কিন্তু কোন তেলে রান্ন খাবেন এই নিয়ে অনেকেই দ্বিধায় থাকেন। সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে, ঠান্ডা তিলের তেল এবং রাইস ব্র্যান তেল রক্তে গ্লুকোজ মাত্রা, রক্তচাপ ও লিপিড প্রোফাইল নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে।

49amtkjo

সঠিক তেল নির্বাচন করলে প্রয়োজনীয় ফ্যাটি অ্যাসিড মিলবে শরীরে। ফটো ক্রেডিট: iStock


আরেকটি গবেষণায় দেখা যাচ্ছে যে, এই তেলগুলি ব্যবহারের ফলে রক্তচাপ, মোট কলেস্টেরল, ট্রাইগ্লিসারাইডস, এলডিএল কোলেস্টেরল কমে গিয়েছে এবং এইচডিএল কোলেস্টেরলের মাত্রা বৃদ্ধি পেয়েছে।

তিল তেল ও রাইস ব্র্যানর তেল উভয়ই অ্যান্টি-অক্সিডেন্টে সমৃদ্ধ এবং মোনো আনস্যাচুরেটেড ফ্যাটি অ্যাসিড এবং পলি আনস্যাচুরেটেড ফ্যাটি অ্যাসিডের সমৃদ্ধ। রাইস ব্র্যান তেলে ওরাইজোনল অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে যা গ্লুকোজ মেটাবলিজম বাড়ায় এবং খারাপ কলেস্টেরল কমায়।

rj3jnpag

ডায়াবেটিকদের জন্য রাইস ব্র্যান এবং তিলের তেল ভাল হতে পারে। ফটো ক্রেডিট: iStock

তিল তেল ভিটামিন ই ও সেসামলের মত অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ। এতে সেসামোলিন নামক একটি লাইজিনও আছে যা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং অ্যান্টি ইনফ্লেমেটারি। 2012 সালের একটি গবেষণায় প্রমাণিত যে, প্রতিদিন তিলের বীজ খেলে লিপিড পারক্সিডেশন মাত্রা কমে।

তিল তেল ও রাইস ব্র্যান তেল মিশিয়ে খাওয়ার কারণ হচ্ছে তিলের চেয়ে রাইস ব্র্যান তেলের স্মোকিং পয়েন্ট বেশি। এছাড়া রাইস ব্র্যান তেল অনেক সস্তাও।

eulq8sd8

চর্বিযুক্ত ফ্যাটি অ্যাসিডের প্রয়োজনীয়তা পূরণে আপনার খাদ্যতে ঘি যোগ করুন। ফটো ক্রেডিট: iStock

তিল-রাইস ব্র্যান তেল রান্নায় তো ব্যবহার করা যেতেই পারে। বেশ কিছু স্যালাড তৈরিতেও এই তেলের মিশ্রণ ব্যবহার করলে ভালোই।

মন্তব্য

স্বাস্থ্যের খবর সাথে সুস্থ থাকার জন্য অভিজ্ঞদের টিপস, ডায়েট পরিকল্পনা জানতে, লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

................... বিজ্ঞাপন ...................

................... বিজ্ঞাপন ...................

................... বিজ্ঞাপন ...................

-------------------------------- বিজ্ঞাপন -----------------------------------